শোককে শক্তিতে রুপান্তর করতে হলে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উদ্ধুদ্ধ হয়ে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় নতুন প্রজন্মকে গড়ে তুলতে হবে ------মৎস্য ও প্রাণি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী

শোককে শক্তিতে রুপান্তর করতে হলে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উদ্ধুদ্ধ হয়ে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় নতুন প্রজন্মকে গড়ে তুলতে হবে ------মৎস্য ও প্রাণি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী

এ কে এম আব্দুল্লাহ, নেত্রকোনা ঃ মৎস্য ও প্রাণি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ আলী খান খসরু এমপি বলেছেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সারা জীবন দেশ ও জনগনের ভাগ্য উন্নয়নের জন্য রাজনীতি করেছেন। তিনি এ দেশের জনগনকে স্বাধীনতা এনে দিয়েছেন। যারা এদেশের স্বাধীনতা চায় না তারা ১৯৭৫ সালের ১৫ আগষ্ট বঙ্গবন্ধুকে স্ব পরিবারে হত্যা করে এ দেশ থেকে জাতির জনকের নাম মুছে ফেলতে ছেয়েছিলেন। বঙ্গবন্ধু কোন ব্যাক্তি নয়। প্রতিটি গণতান্ত্রিক আন্দোলন সংগ্রামের সাথে জড়িয়ে আছে বঙ্গবন্ধুর নাম। বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কণ্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। স্বাধীনতা বিরোধী কুচক্রী মহলটি তাকেও হত্যা করার জন্য ২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলা চালিয়ে ছিল। সেই হামলায় আইভি রহমান সহ ১৮ জন নেতাকর্মী নিহত ও অসংখ্য নেতাকর্মী আহত হয়েছিল। আগষ্ট মাস শোকের মাস। এই শোককে শক্তিতে রুপান্তর করতে হলে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উদ্ধুদ্ধ হয়ে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় নতুন প্রজন্মকে গড়ে তুলতে হবে। তিনি জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের সকল শক্তিকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে সুখী ও সমৃদ্ধ সোনার বাংলা গড়ে তুলতে সবাইকে নিজ নিজ অবস্থান থেকে সততা নিষ্টা ও আন্তরিকতার সহিত কাজ করার আহবান জানান। তিনি গতকাল শুক্রবার বিকাল ৫ টায় তেরী বাজারস্থ সেক্টর্স কমান্ডার ফোরাম, মুক্তিযুদ্ধ ৭১ এর কার্যালয়ে ১৫ আগষ্ট শোক দিবস ও ২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলায় নিহতদের স্মরণে শোক সভায় প্রধান অতিথির ভাষনে এসব কথা বলেন।
  সেক্টর্স কমান্ডার ফোরাম, মুক্তিযুদ্ধ ৭১ নেত্রকোনা জেলা শাখার সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা মোঃ সামছুজ্জোহার সভাপতিত্বে সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট সিতাংশু বিকাশ আচার্য্যরে পরিচালনায় শোক সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য হাবিবা রহমান খান শেফালী, নেত্রকোনা সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার আইয়ুব আলী, সদর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান, তুহিন আক্তার, আটপাড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী মোঃ খায়রুল ইসলাম, জেলা আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক মাজহারুল ইসলাম, জেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা অধ্যাপক মানিক রায়, জেলা সেক্টর কমান্ডার ফোরামের সাংগঠনিক সম্পাদক গাজী মোতুর্জা হোসেন কামাল, রেড ক্রিসেন্টর সম্পাদক গাজী মোজাম্মেল হোসেন, বিশেষ পিপি এডভোকেট রাসেল আহম্মেদ খান প্রমূখ। পরে ১৫ আগষ্ট নিহত বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারবর্গ এবং ২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলায় নিহতদের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনায় বিশেষ মোনাজাত অনুষ্ঠিত হয়।