কেন্দুয়ায় মরমী বাউল সাধক জালাল স্মরন উৎসব উদযাপন

কেন্দুয়ায় মরমী বাউল সাধক জালাল স্মরন উৎসব উদযাপন

মহসীন কেন্দুয়া (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি ঃ বাংলা সাহিত্যের মূল ধারার আত্মসন্ধানী কবি মরমী বাউল সাধক জালাল উদ্দিন খাঁর ৪৭ তম প্রয়ান দিবস উপলক্ষে বুধবার জালাল স্মরণ উৎসব উদযাপিত হয়। উপজেলা শিল্পকলা একাডেমি ও জালাল স্মৃতি পরিষদ আয়োজিত জেলা পরিষদ অডিটরিয়ামে বিকাল ৩ টায় স্মরণ উৎসবের আলোচনা সভায় মূল প্রবন্ধ পাঠ ও সভাপতিত্ব করেন, ইউএনও আল-ইমরান রুহুল ইসলাম। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন নেত্রকোণা জেলা প্রশাসক মঈন উল ইসলাম। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, আত্মসন্ধানী মরমী বাউল সাধক জালাল উদ্দিন খাঁ তার সৃষ্টি কর্মের মাধ্যমে আমাদের জন্য যে অমূল্য সম্পদ রেখে গেছেন, তা নিয়ে আজ গবেষনা চলছে দেশে বিদেশে। তিনি তাঁর রেখে যাওয়া সৃষ্টিকর্ম যথাযথভাবে সংরক্ষনের জন্য সমাজের সকলকে এগিয়ে আসার আহŸান জানান। প্রধান আলোচক হিসেবে জালাল উদ্দিন খাঁর স্মৃতি চারন করে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখেন, জালাল উদ্দিন খাঁর পৌত্র ড. গোলাম মুর্শেদ খাঁ। এছাড়া জালালের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান গীতিকার মোঃ নূরুল ইসলাম, পৌরসভার মেয়র মোঃ আসাদুল হক ভ‚ঞা, জালাল স্মৃতি পরিষদের সভাপতি গীতিকার মোঃ ফজলুর রহমান ও পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি কামরুল হাসান ভ‚ঞা। আলোচনা সভা শেষে “ভবে মানুষ রতন, কর হে যতন, যারে তোমার মনে চায়” জালাল রচিত এই গানের মাধ্যমে সঙ্গীত অনুষ্ঠানের শুরু হয়। পরে জালাল রচিত গান পরিবেশন করেন, স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের কন্ঠ শিল্পী মলয় কুমার গাঙ্গুলী, বাউল শিল্পী সুনিল কর্মকার, বেতার ও টিভি শিল্পী প্রদীপ পন্ডিত, সুশেন সাহা, দিলবাহার খান ও স্থানীয় অন্যান্য শিল্পীরা। জেলা প্রশাসক তার বক্তব্যে আরো বলেন, নেত্রকোণা শেখ হাসিনা বিশ্ব বিদ্যালয়ের এই অঞ্চলের গুণী লেখক কবি সাহিত্যিকদের সৃষ্টি কর্ম প্রজন্মের জন্য সংরক্ষন করার উদ্যোগ নিয়েছি। এটি এ অঞ্চলের জন্য বিশাল গর্বের বিষয়।