দেশ বাঁচাতে বঙ্গবন্ধুকণ্যা শেখ হাসিনার হাতকে আরো শক্তিশালী করতে হবে ঃ অসীম উকিল এম.পি

দেশ বাঁচাতে বঙ্গবন্ধুকণ্যা শেখ হাসিনার হাতকে আরো শক্তিশালী করতে হবে ঃ অসীম উকিল এম.পি

সমরেন্দ্র বিশ্বশর্মা কেন্দুয়া (নেত্রকোণা) প্রতিনিধি ঃ ১৭ বছর পর কেন্দুয়া উপজেলার গড়াডোবা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন বুধবার অনুষ্ঠিত হয়। এই সম্মেলনকে ঘিরে সব ভেদাভেদ ভুলে এক মঞ্চে উঠেন আওয়ামীলীগের নেতারা। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে ও পরে নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হতে জোড়ালো তাগিদ ছিল বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিলের। তিনি এম.পি নির্বাচিত হওয়ার পর নেত্রকোনা-৩ কেন্দুয়া আটপাড়া নির্বাচনী এলাকাটি উন্নয়নের মহাসড়কে যুক্ত করার জন্য যেমন প্রচেষ্টা চালিয়েছেন, তেমনি দলকে নতুন করে ঢেলে সাজাতে অসমাপ্ত সব সম্মেলন ও পূর্নাঙ্গ কমিটি গঠনের পরামর্শ দেন। নির্বাচনের আগে ও পরে আওয়ামীলীগের উদ্যোগে যেসব সভা সমাবেশ করেছেন, প্রতিটিতেই উপজেলা ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের সব গ্রæপিং লবিং ভেঙ্গে সকলকে এক মঞ্চে তুলে এনেছেন। গড়াডোবা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে বিনা প্রতিদ্বন্ধিতায় নির্বাচিত গড়াডোবা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক ফজলুল হক সেলিম সভাপতি নির্বাচিত হন এবং কাউন্সিলরদের ভোটে সাধারন সম্পাদক নির্বাচিত হন আব্দুল আউয়াল আকন্দ। নির্বাচিত সভাপতি সাধারন সম্পাদককে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়ে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সাধারন সম্পাদক, নব্বই’র স্বৈরাচার বিরোধী গণ আন্দোলনের অন্যতম নেতা অসীম কুমার উকিল এম.পি বলেন, কেন্দ্র, জেলা, উপজেলা, পৌরসভার নেতারা ছাড়াও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের স্থানীয় নেতারাও শেখ হাসিনার প্রতিনিধি। তারাই তৃণমূলে দলকে সুসংগঠিত করেন। অসীম কুমার উকিল বলেন, দেশে বি.এন.পি জামায়াত জোটের সকল প্রকার অপপ্রচার প্রতিরোধে দেশ বাঁচাতে শেখ হাসিনার হাতকে আরো শক্তিশালী করতে ঘরে ঘরে আওয়ামীলীগের নেতৃত্বে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। এজন্য বঙ্গবন্ধুর আদর্শে সকল সৈনিকদের ভোগের নয়, ত্যাগের মনোভব নিয়ে আওয়ামীলীগের পতাকাতলে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। ষড়যন্ত্রকারীরা দেশের জনগণকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করেও বার বার ব্যর্থ হচ্ছে। বাংলাদেশকে বিশ্বদরবারে মাথা উচু করে দাড়াঁতে শেখ হাসিনা সততা ও সাহসিকতার সঙ্গে যেভাবে বলিষ্ট নেতৃত্ব দিয়ে যাচ্ছেন, আগামী দিনেও দেবেন, কোন ষড়যন্ত্রই বঙ্গবন্ধু কন্যার উন্নয়ন অগ্রযাত্রাকে বাধাগ্রস্থ করতে পারবেনা। তিনি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবের সোনার বাংলা গড়ে তুলতে আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, কৃষকলীগ, ওলামালীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, মহিলালীগ ও যুবমহিলালীগ সহ অন্যান্য সকল সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীদেরকে স্বাধীনতার সুফল ভোগ করতে এবং স্বাধীনতা বিরোধী চক্রের দাঁতভাঙ্গা জবাব দিতে আরো ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহŸান জানান তিনি।