মদনে মাদ্রাসার অফিস সহকারিকে পেটাল প্রাথমিক শিক্ষক

 মদনে মাদ্রাসার অফিস সহকারিকে পেটাল প্রাথমিক শিক্ষক

 মদন প্রতিনিধি : নেত্রকোনার মদন উপজেলার বালালী বাঘমারা খন্দকার আব্দুর রাজ্জাক দাখিল মাদ্রাসার সামনে সোমবার সকালে ওই মাদ্রাসার অফিস সহকারি ফয়সাল বখতিয়ার জুয়েলকে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বেদড়ক পেটাল সাইতপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক নজরুল ইসলাম ও তার সঙ্গীরা। এ সময় জুয়েলের ডাক-চিৎকারে তার বোন আসমা ও ভাই নাজমুল এগিয়ে এলে তাদের কেউ মারপিট করা হয়। জুয়েলকে  গুরুত্বর আহত অবস্থায় মদন হাসপাতালে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে নেত্রকোনার আধুনিক সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। আসমা ও নাজমুলকে মদন হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।
পারিবারিক ও এলাকাবাসী সূত্রে জানাযায়, মাদ্রাসার অফিস সহকারি জুয়েল ধুবাওয়ালা গ্রামের বাবুল মাস্টারের কাছে ১ লাখ ৪০ হাজার টাকা পায়। সাইতপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক নজরুল ইসলাম পাওনা টাকার বিষয় নিয়ে নানা রকম কথা প্রচার করেন। রোববার সন্ধ্যায় বালালী বাজারে চায়ের দোকানে পাওনা টাকা নিয়ে কোনো কথা না বলতে জুয়েল-নজরুলকে নিষেধ করেন। এ নিয়ে দু-জনের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়। এরই জের ধরে সোমবার সকালে জুয়েল কর্তব্য কাজে মাদ্রাসার সামনে আসতেই নজরুল তার দলবল নিয়ে তার উপর হামলা চালায়।
অভিযুক্ত শিক্ষক নজরুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এসময় আমি ঘটনাস্থলে ছিলাম না তবে আমার ভাই ভাতিজারা মারপিট করেছে।
এ ব্যাপারে মদন থানার ওসি(তদন্ত) স্বপন চন্দ্র সরকার জানান, জুয়েল নামের মাদ্রাসার এক অফিস সহকারি আহত হওয়ার খবর শুনেছি তবে কোনো লিখিত অভিযোগ পায়নি।