খোকন মাস্টার হত্যা মামলার আসামীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে নেত্রকোনা প্রেসক্লাবে পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

খোকন মাস্টার হত্যা মামলার আসামীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে নেত্রকোনা প্রেসক্লাবে পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

এ কে এম আব্দুল্লাহ, নেত্রকোনা ঃ নেত্রকোনা জেলার কেন্দুয়া উপজেলার দুল্লী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আমিনুল ইসলাম খোকন হত্যা মামলার আসামীদের অবিলম্বে গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। নিহতের ভাই কেন্দুয়া পৌরসভার ১ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র-২ সিরাজুল ইসলাম সুকন ও স্ত্রী কোহিনুর আক্তার বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে নেত্রকোনা জেলা প্রেসক্লাবে এই সংবাদ সম্মেলন করেন।
       সংবাদ সম্মেলনে সুকন বলেন, গত ১ জুন কেন্দুয়া পৌরসভার চকপাড়া এলাকার আমার চাচা আব্দুল ওয়াদুদের সাথে তারই প্রতিবেশী হাবিবুর রহমানের সীমানা নিয়ে ঝগড়া হয়। এরই জের ধরে হাবিবুর গংরা আমার চাচার রান্না ঘরের ভেড়া ভেঙ্গে ফেলে। এ ঘটনা নিয়ে আত্মীয় স্বজনরা গত ২রা জুন আব্দুল ওয়াদুদের ঘরে পারিবারিক সালিশ বৈঠকে বসে। সালিশে আব্দুল হেলিম আমার মৃত বাবা ও বড় ভাই আমিনুল ইসলাম খোকন মাস্টারকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকলে খোকন মাস্টার এর প্রতিবাদ করে। এ সময় হাবিবুর রহমান গংরা আমার ভাইকে পিটিয়ে মারাত্মক আহত করে। পরে তাকে কেন্দুয়া হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ডাঃ শ্রদ্ধানন্দন নাথ তাকে মৃত ঘোষনা করেন। এ ব্যাপারে আমি বাদী হয়ে হাবিবুর রহমানসহ ৫ জনকে আসামী করে কেন্দুয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করি।
       প্রভাবশালী হাবিবুর গংরা রাজনৈতিক প্রভাব ও মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে মামলাটি ধামাচাপা দিতে পুলিশকে প্রভাবিত এবং ময়না তদন্তের রিপোর্ট পাল্টানোর আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছে। সংবাদ সম্মেলনে পুলিশের রহস্যজনক ভ’মিকার তীব্র নিন্দা জানান। সংবাদ সম্মেলনে খোকন মাস্টারের স্ত্রী কোহিনুর বেগম তার ছোট দুই কণ্যা সন্তানকে সাথে নিয়ে কান্নাজড়িত কণ্ঠে তার স্বামীর হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত সকল আসামীকে অবিলম্বে গ্রেফতার এবং দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানান।