কেন্দুয়ায় কুড়িয়ে পাওয়া শিশুর

কেন্দুয়ায় কুড়িয়ে পাওয়া শিশুর

কেন্দুয়া প্রতিনিধি : নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় ধানক্ষেতের পাশে কুড়িয়ে পাওয়া শিশু ছেলেটির নাম "জয়" রাখার প্রস্তাব করেছেন উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা ইউনুছ রনি। সোমবার দুপুরে এই নামের প্রস্তাব রাখেন তিনি। উর্ধতন কতৃপক্ষের মতামতে শিশুটি নাম নির্ধারণ করা হবে।জানা যায়, রোববার ( ৭ নভেম্বর) বিকালে কেন্দুয়া পৌরশহরের আদমপুর-দুল্লী সড়কের পণ্ডিত এন্ড খান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে ধানক্ষেতে শিশুর কান্না আওয়াজ শুনতে পায় স্থানীয়রা।  পরে তারা শিশুটিকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। তাৎক্ষণিক পুলিশকে খবর দেয়া। বর্তমানে শিশুটিকে হাসপাতালে ভর্তি রেখেই চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এদিকে শিশু পাওয়ার খবর ছড়িয়ে পড়লে উৎসুক জনতার ভীড় সামলাতে হিমশিম খায় হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক,সেবিকাসহ অন্যরা। খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ মঈন উদ্দিন খন্দকার নবজাতক শিশুটির জন্য উপহার সামগ্রী হাসপাতালে পাঠিয়েছেন। উপহার সামগ্রী মধ্যে রয়েছে শীতের কাপড়, জামা, ল্যাকটুজেন, ডায়াপার, ওয়েট পেপার, ওয়ালক্লথ, ফ্ল্যাক্স, মশারি, বালিশসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় জিনিস পত্র। উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প.কর্মকর্তা  ডাঃ এবাদুর রহমান জানান, শিশুটি মায়ের গর্ভে পূর্ণ বয়স হয়ে জন্মেছে। আপাতত শিশুটির শারীরিক কোন সমস্যা নেই। তাকে হাসপাতালের ভিআইপি কেবিনে রাখা হয়েছে। তার সেবায় সেবিকা ও আয়া রয়েছেন।উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা ইউনুছ রনি বলেন,শিশুটি সার্বিক খোঁজ খবর রাখছি। প্রয়োজনে উন্নত চিকিৎসার মাতৃসদন হাসপাতালে পাঠাবো।শিশিশু ছেলেটির নাম "জয়" রাখার প্রস্তাব করেছি। উর্ধতন কতৃপক্ষের মতামতে শিশুটির নাম নির্ধারণ করা হবে।কেন্দুয়া থানা ওসি কাজী শাহ নেওয়াজ বলেন,শিশুটির নিরাপত্তার পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। আর তার প্রকৃত অভিভাবক খোঁজে বের করতে গভীরভাবে অনুসন্ধান চালানো হচ্ছে। ইউএনও  মোঃ মঈন উদ্দিন খন্দকার বলেন,শিশুটি দত্তক নেওয়ার জন্য অনেকেই বিভিন্ন ভাবে যোগাযোগ করছেন।  সরকারি নীতিমালা অনুসারেই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।