এহন মরলেও শান্তি পাইয়াম,নতুন ঘরে ঈদ করতে পারাম

এহন মরলেও শান্তি পাইয়াম,নতুন ঘরে ঈদ করতে পারাম

মদন প্রতিনিধি: মানষের বাড়িতে বিয়ে ওয়ার পর থেকেই,হোলাহানও মানষের বাড়িতে ওইছে। এহানেই বড় হওইতাছে। জীবনেও ভাবতাছিলাম না এমন একটা ঘর পাইয়াম। আর এমন ঘরে হোলাহান নিয়া ঈদ করবাম। সব যেন স্বপ্নের মত লাগতাছে। মুজিববর্ষ উপলক্ষে নেত্রকোনার মদনে  ঘাটুয়া গুচ্ছ গ্রামে  খাস জমি ও ঘর  পেয়ে আবেগে আপ্লুত ভাবে কথা গুলো বললেন গুচ্ছ গ্রামের বাসিন্দা জান্নাত আক্তার।  আরেক সুফলভোগী বিধবা কুলসুমা আক্তার বলেন, ২০ বছর ওইছে স্বামী মারা গেছে,ছেলে মেয়ে থাকলেও তারা দেহে না,স্বামী মারা যাওয়ার পর থেকেই মানষের বাড়িতে থাকতাম। ওই ঘর পাইয়া গতকাল ঘুমাইয়া ছিলাম নিজের জাগা জমিতে ঘুমাইলে যে কি আরাম এতদিনে বুঝলাম,এহন মরলেও শান্তি পাইয়াম,নতুন ঘরে ঈদ করতে পারাম।  মায়া হাসিনা দিচ্ছে বেকভায়েই শান্তি দিতাছে। উনার শান্তি হউক।  

জমিসহ নতুন বাড়ি উপহার দিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রতিশ্রতি  দিয়েছেন, মুজিববর্ষে কেউ গৃহহীন থাকবে না। সীমিত সম্পদেই সবার ঠিকানা করে দেবে সরকার। রোববার ঘাটুয়া গুচ্ছ গ্রামে গৃহহীন ও ভূমিহীন  পরিবারের নিকট  খাস জমিসহ ৬০টি পরিবারের মধ্যে তিন শতাংশ  খাস জমির দলিল ও গৃহ হস্তান্তর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, নেত্রকোনা জেলা প্রশাসক কাজি মোঃ আব্দুর রহমান।  উপজেলা নির্বাহী অফিসার বুলবুল আহমেদ এর সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা হাবিবুর রহমান,সহকারি কমিশনার ভূমি উম্মে সালমা,ওসি ফেরদৌস আলম,পল্লী বিদ্যুৎ এর ডিজিএম ফিরুজ হোসেন,প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শওকত জামিল,ইউপি চেয়ারম্যান জি এম কায়কোবাদ প্রমূখ।  পরে ঈদ-উল আযাহা উপলক্ষে  সুবিধাভোগী প্রত্যেক পরিবারের   মাঝে  নগদ ১ হাজার টাকা, ঈদ সামগ্রী ও শিশু খাবার বিতরণ করা হয়। 

অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক কাজি মো: আব্দুর রহমান বলেন, নিজের বাড়ি নিজের ঘর,নিজের জায়াগা, আপনার যেন আশ্রয় হয়,আপনার যেন ঠিকানা থাকে,সেই জায়াগায় গুলোকে আপনাকে মনের শক্তি বাড়ানো জন্য,মনের জোড় বাড়ানেরা জন্য,নিজের ঠিকানায় নিজেকে স্বাবলম্বী  করার জন্য, নিজেকে আতœকর্মসংস্থান করার জন্য, নিজের ছেলে মেয়েদেরকে পরবর্তি প্রজন্ম কে একটি ঠিকানা দেয়ার জন্য সুধুর প্রসারি একটি পরিকল্পনা নিজের জায়াগা নিজের ঘর হিসেবে আপনার  বড় স্বপ্ন  আতœতৃপ্তির জন্য কাজ করে যাচ্ছেন জননেত্রী শেখ হাসিনা। আমরা এর প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করে যাচ্ছি। আপনাদের সকল সুযোগ সুবিধা   ও কোন সমস্যা দেখা দিলে আমরা যথাযথ ব্যবস্থা নিব।