দুর্গাপুরে পানির স্তর নীচে নামায় বোরো আবাদ ব্যহত

দুর্গাপুরে পানির স্তর নীচে নামায় বোরো আবাদ ব্যহত

তোবারক হোসেন খোকন :দুর্গাপুর(নেত্রকোনা)প্রতিনিধি শস্য ও মৎস্য ভান্ডার হিসেবে খ্যাত নেত্রকোনার দুর্গাপুর উপজেলা। এ উপজেলার বেশিরভাগ মানুষ কৃষির ওপর নির্ভরশীল। এবার চলতি ইরি-বোরো মৌসুমে নদী ও হাওর বিলে পানি কম থাকায় চরম বিপর্যয়ে পড়তে হয়েছে বোরো আবাদ নিয়ে। জলবায়ু পরিবর্তন ও বৃষ্টিপাত না হওয়ায় সেচের পানির সংকট দেখা দিয়েছে নেত্রকোনার দুর্গাপুর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে।

এ নিয়ে শনিবার বিভিন্ন গ্রামে গিয়ে দেখাগেছে, সেচের জন্য গভীর ও অগভীর নলকূপ দিয়ে সমমান ধান ক্ষেতের এক কোনায় ৫-৬ হাহ মাটি খুঁড়ে সেচের পাম্প বসিয়েও পানির দেখা মিলছেনা। ভূ-গর্ভস্থ্য পানির স্তর নীচে নেমে যাওয়ায় পুরো উপজেলায় বোরো ফসল আবাদ ব্যহত হচ্ছে। বোরো ধানে সেচের সঠিক সময় এখন। পানির স্তর নিচে নামায় পানির তীব্র সংকটের ফলে এবার বোরো আবাদ নিয়ে চিন্তিত স্থানীয় কৃষকগন। মৌসুমের শুরুতেই অত্র উপজেলায় প্রায় ২৪ হাজার নলকূপে পানি উঠছে না। উপজেলা শহরের বাসা বাড়ী গুলোর পানির পাম্পে যেখানে ২৫মিনিটে পানির টেংকী ভরে যেতো এখন তা ১ঘন্টায়ও ভরছে না। বেশিক্ষণ পাম্প চলতে থাকায় অনেক মর্টার পুড়ে যাওয়ার ঘটনাও ঘটছে প্রতিনিয়ত এতে সুপেয় পানির সংকটেও ভুগছে উপজেলাবাসী। গাঁওকান্দিয়া ইউনিয়নের জাগিরপাড়া গ্রামের কৃষক হাজী হযরত আলী জানান, এবার বোরো আবাদ অন্যান্য বারের চেয়েও খুব ভালো হয়েছিলো। কিন্তু পানির স্তর নীচে নামায় ফসল নিয়ে খুবই দুঃচিন্তায় আছি।  উপজেলা কৃষি বিভাগের তথ্যমতে দুর্গাপুর উপজেলায় এবার ১৭হাজার মেট্রিকটন বোরো আবাদের লক্ষমাত্রা থাকলেও সেচের পানির কারনে চাহিদা অর্জন ব্যাহত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।