মদনে ১৮ জনের প্রাণহানির ঘটনায় নৌকার মালিক গ্রেফতার

মদনে ১৮ জনের প্রাণহানির ঘটনায় নৌকার মালিক গ্রেফতার

জাকির আহমেদ, মদন: নেত্রকোণার মদন উপজেলার উচিতপুর হাওরে নৌকাডুবে ১৮ জনের প্রাণহানির ঘটনায় নৌকার মালিক মোঃ লাহুত মিয়া(৪০) কে গ্রেফতার করেছে মদন থানার পুলিশ। সোমবার (২৬ এপ্রিল) রাতে উচিতপুর ট্রলার ঘাট থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। লাহুত মিয়া উপজেলার মদন ইউনিয়নের কুলিয়াটি গ্রামের নূরুল হক(পুলিশ মিয়া) এর ছেলে।

জানাযায়, উচিতপুর হাওরে নৌকাডুবে ১৮ জনের প্রাণহানি ঘটায় পর্যটকবাহী ভাই ভাই ট্রলারের নামে এম,এস,সি নং ২৪/২০২০ এবং আই এস ও ৭৬(সাং-০৫) এর ৬১(খ) ৬১(চ) ৬৬(ক) ৬৭.৭০(২) ধারায় স্পেশাল মেট্রোপলিটন ম্যাজিষ্ট্রেট যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ নৌ আদালত ঢাকায় মামলা হয়। এতে নৌ পুলিশ নৌকার মালিক লাহুত মিয়া ও দুই মাঝিকে আসামী করেন। দায়েরকৃত মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হলে মদন থানাকে আদেশ দিলে সোমবার (২৬ এপ্রিল) রাতে পুলিশ নৌকার মালিক লাহুত মিয়াকে গ্রেফতার করে।  

মদন থানার ওসি ফেরদৌস আলম জানান, নৌকার মালিক লাহুত মিয়ার নামে ওয়ারেন্ট থাকায় সোমবার(২৬ এপ্রিল) রাতে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। মঙ্গলবার(২৭ এপ্রিল) তাকে নেত্রকোণার কোর্ট হাজতে প্রেরণ করা হবে।  

২০২০ সালের ৫ আগষ্ট মদন উপজেলার উচিতপুর হাওরে ময়মনসিংহ সদর ও গৌরীপুর উপজেলা হতে  ৪৮ জন মাদ্রাসার শিক্ষক ও শিক্ষার্থী ভ্রমনের আসে। পরে লাহুত মিয়ার ইঞ্জিত চালিত নৌকায় যাত্রা শুরু করে ২.৫ কিলোমিটার দূরে গোবিন্দশ্রী ইউনিয়নের রাজালীকান্দা নামক স্থানে পৌছালে আনুমানিক দুপুর ১২ টায় নৌকা ডুবিতে ১৮ জনের প্রাণহানি ঘটে। তাৎক্ষনিক জেলা প্রশাসক মদন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বুলবুল আহমেদ কে প্রধান করে ৪ সদস্য বিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি ওই রাতেই গঠন করে ৭ কর্ম দিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিলের আদেশ দেয়। প্রচন্ড বাতাস ও ঢেউয়ের আঘাতে ১৮ জনের প্রাণহানির কারণ উল্লেখ করে (১৯ আগষ্ট) বুধবার জেলা প্রশাসক বরাবর প্রতিবেদন দাখিল করেন তদন্ত কমিটি।