নীতির রাজা হয়ে এগিয়ে চলতে চান অসীম উকিল

নীতির রাজা হয়ে এগিয়ে চলতে চান অসীম উকিল

সমরেন্দ্র বিশ্বশর্মা, কেন্দুয়া (নেত্রকোণা) প্রতিনিধি। সবাই বলে, রাজনীতিতে শেষ বলতে কিছু নেই। একথাটি সমাজে হার হামেশাই প্রচলিত। এই প্রচলিত কথাটি ভেঙ্গে চুরমার করতে চান বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক নেত্রকোনা- আসনের এম.পি অসীম কুমার উকিল। ৯০ স্বৈরাচার বিরোধী গণ আন্দোলনে তিনি তার জীবনে একবার নীতির প্রমাণ রেখেছেন। এবার এম.পি নির্বাচিত হয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্র-ছাত্রীদের দাড় করিয়ে ফুল ছিটিয়ে যাতে সংবর্ধনা তাকে না দেয়া হয় সেজন্য সাফ সাফ জানিয়ে দিয়েছেন প্রতিষ্ঠান প্রধানদের। তিনি মঞ্চে ঘোষনা দিয়ে বলেছেন যে এলাকার লোকজন আমাকে ভোট দিয়ে এম.পি নির্বাচিত করেছেন তাদের কাছ থেকে কিসের সংবর্ধনা নেব? যদি কোন দিন দেশের বাইরে অন্য কোন রাষ্ট্র থেকে কোন ভালো কাজ করতে গিয়ে পুরষ্কার বা সম্মান কুড়িয়ে আনতে পারি সে ক্ষেত্রে দেশের মানুষ আমাকে সংবর্ধনা দিতে পারে। তিনি বিদ্যুৎ সংযোগের বিষয়ে কোন উদ্বোধনী অনুষ্ঠান না করে সরাসরি সংযোগ দেয়ার জন্য পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির কর্মকর্তাদের পরিষ্কার ভাষায় জানিয়ে দিয়েছেন। দলীয় নেতাকর্মীদের কাছ থেকে ইউনিয়ন ভিত্তিক উন্নয়ন সমস্যার তথ্য একসঙ্গে তালিকা করে নিয়েছেন। তাছাড়া বলেছেন যদি তার নামে কেউ দালালী করে চাকুরি ক্ষেত্রে, উন্নয়ন প্রকল্পের ক্ষেত্রে, বরাদ্দ আনতে কোন টাকা পয়সা কেউ চায় সে ক্ষেত্রে সঙ্গে সঙ্গে তাকে বেঁধে পুলিশের হাতে তুলে দেয়ার ঘোষনা দেন তিনি। তিনি বলেন, আমার প্রিয় নেত্রী প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ শেখ হাসিনা সারা বিশ্বে দূর্নীতিমুক্ত রাষ্ট্র নায়কদের মধ্যে একজন। আমি তার পথ ধরেই চলতে চাই। রাজনীতিতে নীতি প্রতিষ্ঠা করে নীতি রাজা আজীবন বঙ্গবন্ধু আদর্শ নিয়ে বেচেঁ থাকতে চাই। সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য এম.পি অসীম কুমার উকিল তার ন্যায় নীতির কথা দলীয় নেতাকর্মী সহ সকল শ্রেণী পেশার মানুষ এবং বিভাগীয় সকল কর্মকর্তাদের পরিষ্কার ভাষায় জানিয়ে দিয়েছেন। এর পর সবার মুখে মুখেই এখন একটি কথা ফিরছে রাজনীতিতে নীতির রাজা হয়েই আগামীর পথ চলতে চান অসীম কুমার উকিল।