৮ কোটি ৪২ লক্ষ টাকা ব্যায়ে গ্রামীন এলাকায় পানি ও স্যানিটেশন ব্যবস্থার উন্নয়নে কাজ করছে নেত্রকোনা সদর জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল

৮ কোটি ৪২ লক্ষ টাকা ব্যায়ে গ্রামীন এলাকায় পানি ও স্যানিটেশন ব্যবস্থার উন্নয়নে কাজ করছে নেত্রকোনা সদর জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল

এ কে এম আব্দুল্লাহ্, নেত্রকোনা: মুজিব শত বর্ষ উপলক্ষ্যে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর নেত্রকোনা সদর উপজেলা ৮ কোটি ৪২ লক্ষ টাকা ব্যায়ে গ্রামীণ এলাকায় সুপেয় পানি ও স্যানিটেশন ব্যবস্থার হার বৃদ্ধি করতে কাজ করে যাচ্ছে। 
    
১৯৩৬ সাল থেকে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর দেশে সুপেয় পানি ও স্বাস্থ্য সম্মত স্যানিটেশন ব্যবস্থার উন্নয়নে কাজ শুরু করে। 
     
স্বাধীনতা সংগ্রামের পর যুদ্ধ বিধ্বস্ত বাংলাদেশের সাধারণ মানুষের কাছে সুপেয় পানি সরবরাহ ব্যবস্থা পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নির্দেশ দেন। তারই ধারাবাহিকতায় বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্বাচনী ইশতেহার ‘আমার গ্রাম, আমার শহর’ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর গ্রামীণ এলাকায় সুপেয় পানি সরবরাহ ও স্বাস্থ্য সম্মত স্যানিটেশন ব্যবস্থার উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।
    
নেত্রকোনা সদর উপজেলার উপ-সহকারী প্রকৌশলী সুব্রত সরকার জানান,  বৈশি^ক মহামারী করোনার প্রভাব মোকাবেলায় সরকারের গৃহীত কর্মসূচী বাস্তবায়ণের লক্ষ্যে প্রধান প্রকৌশলীর নির্দেশে সারাদেশের ন্যায় নেত্রকোনা সদর উপজেলা অফিসের কর্মকর্তা কর্মচারীবৃন্দ  উপজেলা প্রশাসনের সাথে বিভিন্ন ইউনিয়নের জরিপ, প্রধানমন্ত্রীর উপহার সামগ্রী বিতরণ, মাস্ক, হ্যান্ড স্যানিটাইজার, সাবান বিতরণ, হ্যান্ড ওয়াশ বেসিন নির্মান করা, বিভিন্ন জায়গায় পানি সরবরাহ অব্যহত রাখতে প্রয়োজন অনুসারে নলকুপ মেরামতের কাজ করে যাচ্ছে। এসব কাজের পাশাপাশি তৃণমূল পর্যায়ের জনগনের মাঝে ব্যাপক জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে জনগনকে সামাজিক দূরত্ব মেনে চলা, নিয়মিত মাস্ক পরিধান করা, হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার করা এবং কিছুক্ষণ পর পর অন্তত ২০ সেকেন্ড সাবান পানি দিয়ে হাত ধোয়ার ব্যাপারে প্রচার প্রচারণা চালাচ্ছে।
   
 জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তর, নেত্রকোনা সদর উপজেলা অফিস জনগণের মাঝে সুপেয় পানি ব্যবহারের হার বৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সারাদেশে পানি সরবরাহ্ প্রকল্পের আওতায় ৬ কোটি ৫০ লক্ষ টাকা ব্যায়ে বিভিন্ন গ্রামীন এলাকায় ৬ শত ২৪ টি গভীর নলকুপ স্থাপনের কাজ করছে। এছাড়াও প্রকল্পের মাধ্যমে বিভিন্ন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ১ কোটি ১২ লক্ষ টাকা ব্যায়ে ১৮৭ টি পানির উৎস এবং ৮০ লক্ষ টাকা ব্যায়ে আধুনিক সুবিধা সম্বলিত ৫৪ টি ওয়াশ বøক নির্মাণ করা হয়েছে।