মার কাছে বায়না ধরে বাবার দোকান যাওযা হলো না শিশু তামজিদের, রাস্তায় প্রান কেড়ে নিলো পাথরভর্তি হ্যান্ডট্রলির চালক

মার কাছে বায়না ধরে বাবার দোকান যাওযা হলো না শিশু তামজিদের, রাস্তায় প্রান কেড়ে নিলো পাথরভর্তি হ্যান্ডট্রলির চালক

শেখ শামীম, স্টাফ রিপোর্টার : সুনামগঞ্জের ধর্মপাশা উপজেলার মধ্যনগর থানাধীন বংশীকুন্ডা উত্তর ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী মহিষখলা বাজারে পাথরভর্তি হ্যান্ডট্রলির চাপায় তামজিদ নামের ৭ বছর বয়সী এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। হ্যান্ডট্রলির চালককে আটক করেছে  মধ্যনগর থানা পুলিশ । নাম তার সাইফুল (২০)। তার বাড়ী সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার তেরগড় রতনপুরের মৃত আব্দুল ওয়াহাবের ছেলে।

এ মৃত্যুর খবরে আত্বীয় স্বজনদের কান্নার আহাজারি এবং সাউদপাড়া গ্রামের মানুষের মাঝে শোকের মাতম। একমাত্র সন্তান ছেলেকে হারিয়ে বাবা মা প্রায় বাকরূদ্ধ ও পাগল।

আজ শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। তামজিদ ওই ইউনিয়নের সাউদপাড়া গ্রামের মহিষখলা বাজারের মুদি দোকানি মুহাম্মদ ওয়াসিম মিয়ার একমাত্র সন্তান ছেলে।

স্থানীয় সুত্রে জানা গেছে, শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) সকালে শিশু তামজিদ তার মার কাছে বায়না ধরে বলে আমি দোকানে যাব, আমি বাবার কাছে যাব। পরে মা দোকানের কর্মচারি ওয়াসিম (২৫) এর সাথে তামজিদকে যেতে বলে। দোকানে যাওয়ার পথে রাস্তায় বাগলি থেকে আসা পাথরভর্তি হ্যান্ডট্রলি তাকে চাপা দেয়। ঘটনাস্থলে শিশু তামজিদ মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে। ঘটনাস্থল থেকে পালাতে চেষ্টা করে চালক । পরে ওই এলাকার জনতা তাকে ধাওয়া করে আটকিয়ে স্থানীয়  ইউপি চেয়ারম্যানকে খবর দেন।

বংশীকুন্ডা উত্তর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. বিল্লাল হোসেন ইকরা্ প্রতিদিনকে জানান, পাথর হ্যান্ডট্রলির চাপায় এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। পাথর হ্যান্ডট্রলি জব্দ করে চালক সাইফুলকে মধ্যনগর থানা  পুলিশ হেফাজতে নিয়েছেন। মধ্যনগর থানার ওসি নির্মল দেব স্থানীয় সাংবাদিকদের এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।