কেন্দুয়ায় প্রধান শিক্ষকে নির্মমভাবে কুপিয়েছে প্রতিপক্ষরা 

কেন্দুয়ায় প্রধান শিক্ষকে নির্মমভাবে কুপিয়েছে প্রতিপক্ষরা 

কেন্দুয়া প্রতিনিধি : নেত্রকোণার কেন্দুয়া উপজেলার নোয়াদিয়া একতা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল কাদিরকে নির্মমভাবে কুপিয়েছে প্রতিপক্ষ মূখলেছ মিয়া গংরা। পুকুরে সেচ দেওয়াকে কেন্দ্র করে গত শনিবার স্কুলে যাওয়ার পথে এই নির্মমতার শিকার হন আব্দুল কাদির। এ ঘটনায় আহত প্রধান শিক্ষকের স্ত্রী জাফরিন খন্দকার বাদী হয়ে মূখলেছ মিয়াকে প্রধান আসামী করে ৮ জনের বিরুদ্ধে কেন্দুয়া থানায় মামলা দায়ের করেছেন। ঘটনার ৩দিন অতিবাহিত হলেও পুলিশ কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি। মামলার এজহার সূত্রে জানা গেছে,ঘটনার আগের দিন পুকুরে সেচ দেওয়াকে কেন্দ্র করে প্রধান শিক্ষক আব্দুল কাদিরের সাথে প্রতিপক্ষ মূখলেছ মিয়া গংদের সাথে কথার কাটাকাটি হয়। এরপর প্রতিপক্ষরা তাকে খুন করার পরিকল্পনা করে পরদিন ১৬ জানুয়ারী শনিবার সকাল ৮টার দিকে স্কুলে যাওযার পথ গতিরোধ করে বেধরক কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। এতে তার কপাল কেটে যাওয়া,বাম হাত ভাঙ্গাসহ শরীরের বিভিন্ন অঙ্গে মারাত্বক কাটাযুক্ত জখম হয়। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে নেত্রকোণা আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করেন। বর্তমানে তিনি ওই হাসপাতালেই চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এসময় হামলাকারীরা আব্দুল কাদিরের পকেটে থাকা ২৫ হাজার টাকা ও একটি সোনার আংটি ছিনিয়ে নিয়ে গেছে বলে এজহারে উল্লেখ করা হয়েছে।
মামলার বাদী জাফরিন খন্দকার বলেন,আসামীরা বিভিন্ন হুমকী দিয়ে বলছে মামলা তুলে না নিলে আমাদেরকে  মেরে ফেলা হবে। আসামীরা খুবই প্রভাবশালী তাদের এমন হুমকীতে আমরা খুবই আতংকে দিনযাপন করছি। এব্যাপারে কেন্দুয়া থানা ওসি কাজী শাহ নেওয়াজ জানান,আসামীদের ধরতে এলাকায় অভিযান চালানো হচ্ছে।