কৃষি সহায়তা ও বাস্তবায়ন ক্যাটাগরিতে দেশের সেরা প্রতিষ্ঠান মনোনীত আরবান

কৃষি সহায়তা ও বাস্তবায়ন ক্যাটাগরিতে দেশের সেরা প্রতিষ্ঠান মনোনীত আরবান

 সুহাদা মেহজাবিন : গতকাল ৮ জানুয়ারি (শুক্রবার) ঢাকায় প্যান ফেসিফিক হোটেল সোনারগাঁও -এ ঘোষিত হয় স্ট্যান্ডার্ড চাটার্ড ব্যাংক চ্যানেল আই অ্যাগ্রো অ্যাওয়ার্ড ২০২০। স্ট্যান্ডার্ড চাটার্ড ব্যাংক ও চ্যানেল আই এর আয়োজক। স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন আরবান কৃষি সহায়তা ও বাস্তবায়ন ক্যাটাগরিতে দেশের সেরা প্রতিষ্ঠান মনোনীত হওয়ায় এর প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক সৈয়দ আরিফুজ্জামানের হাতে তুলে দেয়া হয় স্ট্যান্ডার্ড চাটার্ড ব্যাংক চ্যানেল আই অ্যাগ্রো অ্যাওয়ার্ড ২০২০ এর সম্মাননা স্মারক। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় কৃষিমন্ত্রী ড. মোঃ আব্দুর রাজ্জাক এমপি ও বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাননীয় পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন চ্যানেল আই এর বার্তা বিভাগের প্রধান সাইখ সিরাজ ও স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা নাসের এজাজ বিজয়। অনুষ্ঠানে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে মোট ১০ ব্যাক্তি/প্রতিষ্ঠানকে ক্রেষ্ট, সনদপত্র ও চেক প্রদান করা হয়। একটিভিটি ফর রিফরমেশন অব বেসিক নীড্স-আরবান একটি স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান। নেত্রকোনা জেলার পূর্বধলা উপজেলায় ২০০২ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকেই সংগঠনটি মাটি ও মানুষের সাথে সম্পৃক্ত থেকে তৃণমূল জনগোষ্ঠিকে উন্নয়নের মূল ধারায় যুক্ত করতে বহুমূখী কর্মসূচী বাস্তবায়ন করে আসছে। কৃষিতে আধুনিক ও লাগসই প্রযুক্তির ব্যবহার ও প্রান্তিক চাষিদের সহায়তা প্রতিষ্ঠানটির অগ্রাধিকার ভিত্তিক বাস্তবায়ন কৌশল। আরবান দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করে সমৃদ্ধ দেশ গঠনে কৃষিখাতের উন্নয়ন নিঃশন্দেহে এক অন্যতম বিবেচ্য বিষয়। শস্য-শ্যমলা, সবুজ-সুফলা এই বাংলার প্রাণ স্পন্দনে গ্রামীণ কৃষক সমাজ। দেশের প্রবৃদ্ধি অর্জনে কৃষিখাতের রয়েছে স্পষ্ট ও জোড়ালো অবদান। উন্নয়ন সংশ্লিষ্ট যেকোন প্রতিষ্ঠানের জন্যই কৃষির অগ্রগতিতে ভূমিকা রাখা জরুরি। যার অংশ হিসেবে আরবান কর্ম এলাকায় কৃষির উন্নয়নে বহুমাত্রিক কার্যক্রম বাস্তবায়ন করে আসছে। কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধি ও কৃষি সম্পৃক্ত জনগোষ্ঠীর জীবন-মান উন্নয়নে আরবান বাস্তবায়িত কার্যক্রম সমূহের মধ্যে প্রান্তিক কৃষকদের সহায়তায় বসত ভিটায় সবজি চাষ, আধুনিক ও তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে বাড়ি বাড়ি গিয়ে সহায়তা প্রদানে ইনফোলেডি ও ইনফোপ্যাডলার কার্যক্রম, কৃষকদের নিয়মিত সহায়তা প্রদানে পল্লী তথ্য কেন্দ্র, পরিবেশ সুরক্ষা ও জলবায়ু পরিবর্তন রোধে সামাজিক বনায়ন, উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্য মূল্য প্রাপ্তিতে প্রচারাভিযান, উৎপাদন বৃদ্ধিতে প্রশিক্ষণ সহায়তা, প্রদর্শনী খামার ও কৃষি ক্যাম্প, চিংড়ি ও মাছ চাষিদের উৎপাদন বৃদ্ধি ও মাছের রোগ প্রতিরোধে কর্মসূচী বাস্তবায়ন, গ্রাম বাংলায় ইঁদুর ব্যবস্থাপনা প্রকল্প, মোবাইল এ্যাপ্লিকেশন তৈরি করে কৃষকদের সাথে বিশেষজ্ঞজনদের সাথে যুক্ত করা, চিংড়ি হ্যাচারির জন্য অডিও-ভিজুয়াল প্রশিক্ষণ টুল্স নির্মাণ এবং বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, ওয়ার্ল্ডফিস সেন্টার ও যুক্তরাজ্যভিত্তিক বিশ্ববিদ্যালয় এ্যাক্সিটার ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান সিফাসের সাথে যৌথ উদ্যোগে গবেষনা কার্যক্রম অন্যতম। কৃষি কার্যক্রমে যুক্ত থেকে নিরবচ্ছিন্ন সহায়তা প্রদানের স্বীকৃতি স্বরূপ আরবান এযাবত জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে বেশ কিছু সম্মানজনক পুরষ্কার লাভ করে। যার মধ্যে ২০১১ সালে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের আইসিটি ডিভিশন থেকে ই-কৃষি এবং জীবনমান উন্নয়নে অবদান রাখায় ন্যাশনাল ইনোভ্যাশন এ্যাওয়ার্ড, ২০১১ সালে ইনফোলেডি কার্যক্রমের মাধ্যমে জীবনমান উন্নয়নে ভূমিকা রাখায় এশিয়া ভিত্তিক মন্থন এ্যাওয়ার্ড, তৃণমূলে নারীদের প্রযুক্তিগত দক্ষতা বাড়ানোর জন্য অবদান রাখায় ২০১৩ সালে বিশ্বব্যাংক ও মাইক্রোসফট আয়োজিত দক্ষিণ এশিয়া ভিত্তিক ইয়ুথ সলিউশন এ্যাওয়ার্ড আর আরবানের নির্বাহী পরিচালক সৈয়দ আরিফুজ্জামান গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর কর্তৃক ২০১৯ সালে জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ যুব সংগঠকের সম্মাননা লাভ বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ।