হালুয়াঘাটে ট্রাস্টেড ফ্রিল্যান্সিং সেন্টারের শাখা উদ্বোধন  

হালুয়াঘাটে ট্রাস্টেড ফ্রিল্যান্সিং সেন্টারের শাখা উদ্বোধন  

এম,এ মালেক হালুয়াঘাট প্রতিনিধি : ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটে আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করলো ট্রাস্টেড ফ্রিল্যান্সিং সেন্টার। সোমবার বিকেলে পৌর শহরের পোষ্ট অফিস রোডে শাখা উদ্বোধন উপলক্ষ্যে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।
আলোচনা সভায় উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের সাবেক সভাপতি তসলিম আহমদ এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মাহমুদুল হক সায়েম, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: রেজাউল করিম, উপজেলা আ.লীগের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক আব্দুর রশিদ, অফিসার ইনচার্জ মো: মাহমুদুল হাসান, বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি মি: ষ্টিফেন ষ্টেনশন রংদী, ট্রাস্টেড ফ্রিল্যান্সিং সেন্টারের চেয়ারম্যান নূর আলী, সমাজ সেবক সুরুজ আলী, প্রশিক্ষক ও পরিচালক হারুন অর রশিদ প্রমূখ।
এ সময় বক্তারা তাদের বক্তব্যে বলেন, পরিবর্তনশীল এবং প্রতিযোগীতা মূলক বিশ্বায়নের এই সমযে তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলোতে আর্থ-সামাজিক অস্থিরতার কারনে অর্থনৈতিক বৈশম্য এবং অব্যবস্থাপনার কারনে বেকার সমস্যা ক্রমেই বাড়ছে। বাংলাদেশও এই পরিস্থিতির স্বীকার। যার ফলে বেকার যুবকদের পাশাপাশি স্বল্প আয়ের মানুষ জীবনের প্রয়োাজনে বিকল্প আয়ের পথ খুজছে।
এই সুযোগে ফ্রিল্যান্সিং বা আউটসোর্সিং শব্দটি বাংলাদেশের মানুষের মাঝে দ্রুত প্রসার লাভ করছে, এবং হয়তো ভবিষ্যতে আরও করবে। ফ্রিল্যান্সিং বা আউটসোর্সিং শব্দের মূল অর্থ হল মুক্ত পেশা। অর্থাৎ মুক্তভাবে কাজ করে আয় করার যে পেশা তকেই আশলে ফ্রিল্যান্সিং বলা হয় । আর একটু সহজ ভাবে বললে, ইন্টারনেটের ব্যাবস্থার মাধ্যমে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান বিভিন্ন ধরনের কাজ করিয়ে নেয়।
নিজ প্রতিষ্ঠানের বাইরে অন্য কাউকে দিয়ে এসব কাজ করানোকে ফ্রিল্যান্সিং বা আউটসোর্সিং বলে। যারা আউটসোর্সিংয়ের কাজ করে দেন, তাঁদেরকে বলা হয় ফ্রিল্যান্সার ।
বিশ্বব্যাপী ফ্রিল্যান্সিংয়ের বিশাল বাজার বা অনলাইন মার্কেট প্লেস এর শীর্ষ ভাগ আমাদের পাশের দেশ ভারতের হাতে। ফ্রিল্যান্সিং সার্ভিসে ভারতের পাশাপাশি ফিলিপিনস, পাকিস্তান, নেপাল, মালয়েশিয়ার ইন্দোনেশিয়া, ইউক্রেন, ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, চীন, রাশিয়া, পানামা, মিসর এবং আরও অনেক দেশ এগিয়ে যাচ্ছে।
অনলাইন মার্কেট প্লেসে বাংলাদেশ অনেক দেরিতে প্রবেশ করলেও স্বপ্ন দেখার মতো বিষয় হচ্ছে, ফ্রিল্যান্সিং বা আউটসোর্সিংয়ে আমরা ধীরে ধীরে হলেও এগিয়ে যাচ্ছি। সম্ভাবনাময় দেশের কাতারে চলে এসেছে বাংলাদেশ। তাই আউটসোর্সিংয়ের মতো শিল্প হয়ে উঠছে বেকার সমস্যা সমাধান এবং বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনের অন্যতম উপায়।