কেন্দুয়ায় পাষান্ড ছেলের বউ-নাতির কান্ড

কেন্দুয়ায় পাষান্ড ছেলের বউ-নাতির কান্ড

কেন্দুয়া প্রতিনিধি ঃ নেত্রকোণার কেন্দুয়ায় পাষান্ড ছেলের বউ ও নাতি পিঠিয়ে ৭০ বছরের বৃদ্ধ শ্বাশুরীকে হাসপাতালে পাঠিয়েছে। বৃহস্পতিবার উপজেলার আশুজিয়া গ্রামে এঘটনাটি ঘটেছে। নির্যাতিতা বৃদ্ধ মহিলা নাম ইঞ্জিলা বেগম। তিনি নুরুল ইসলামের স্ত্রী। নুরুল ইসলাম-ইঞ্জিলা বেগমের দাম্পত্যজীবনে ৩ ছেলে সন্তানের জনক। ওই ৩ সন্তানের মধ্যে আব্দুল হক ও লিটন মিয়া তার মা-বাবাকে প্রায় অত্যাচার-মারপিট করে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে বাড়ির পাশে সামন্য ময়লা ফেলানোকে কেন্দ্র করে লিটনের স্ত্রী নাজমা ও তার ছেলে নাঈম মিলে বৃদ্ধ ইঞ্জিলাকে বেধরক মারপিট করে। পিঠুনী খেয়ে ওই বৃদ্ধ মহিলা গ্রামের বাজারে গিয়ে কান্নাকাটি করতে থাকেন। খবর পেয়ে নারীনেত্রী কল্যাণী হাসান স্থানীয় আবুল কাশেমের মাধ্যমে ইঞ্জিলা বেগমকে চিকিৎসার জন্যে কেন্দুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। বর্তমানে সেখানেই তিনি চিকিৎসাধীন রয়েছেন। খবর পেয়ে হাসপাতালে ও ঘটনাস্থলে ছুটে যান কেন্দুয়া থানায় দ্বায়িত্বে থাকা এসআই ফজলে এলাহী।সম্প্রতিকালে বড় ছেলে আব্দুল হক ইঞ্জিলা বেগমের বাম হাত ভেঙ্গে দিয়েছিল। এঘটনা সামাজিক যোগাযোগ ফেইসবুকে ভাইরাল হলে নেটিজনদের মাঝে ধিক্কার ঝড় উঠেছে।নির্যাতিতা ইঞ্জিলা বেগম কান্নাজড়িত কন্ঠে বলেন, সকাল বেলায় বাড়ির পাশে ময়লা ফেলানোকে কেন্দ্র করে তার ছেলে লিটনের বউ ও নাতি নাঈম তাকে মেরেছে। তাছাড়া প্রায়ই ওই বৃদ্ধা দম্পতির ওপর নানাভাবে নির্যাতন করে তারা। কিছুদিন আগে ওই বৃদ্ধ মহিলার বড় ছেলে আব্দুল হক হাত ভেঙ্গে দিয়েছিল বলেও জানান তিনি। কেন্দুয়া থানার ওসি (তদন্ত) হাবিবুল্লা খান জানান,খবর পেয়ে ঘটনাস্থল ও হাসপাতালে পুলিশ পাঠিয়েছি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।