হাট-বাজারগুলোকে অপরাধমুক্ত রাখতে নেত্রকোনার পূর্বধলায় উপজেলা পরিষদের উদ্যোগে  হাট-বাজারে সিসি ক্যামেরা বসানোর কাজ শুরু

হাট-বাজারগুলোকে অপরাধমুক্ত রাখতে নেত্রকোনার পূর্বধলায় উপজেলা পরিষদের উদ্যোগে  হাট-বাজারে সিসি ক্যামেরা বসানোর কাজ শুরু

এ কে এম আব্দুল্লাহ্, নেত্রকোনা : নেত্রকোনা জেলার পূর্বধলা উপজেলা পরিষদ স্থানীয় হাট-বাজারগুলোকে অপরাধমুক্ত রাখতে প্রযুক্তির নজরদারী সিসি (ক্লোজ সাকির্ট) ক্যামেরার আওতায় আনার উদ্যোগ নিয়েছে।পূর্বধলা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম সুজন জানান, স্বাধীনতার মহান স্থপতি, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার দীপ্ত অঙ্গীকার করেছেন। তারই আলোকে আইনশৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক বিশেষ করে জঙ্গী, সন্ত্রাসী হামলা, চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই, লুটপাট, অগ্নিসংযোগ ও হত্যার মতো জগণ্য অপরাধ নিয়ন্ত্রণে এই সি সি ক্যামেরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। তিনি আরো বলেন, বার্ষিক উন্নয়ন  কর্মসূচীর আওতায় স্থানীয় হাট বাজার থেকে প্রাপ্ত অর্থ রাজস্ব খাতে জমা দেয়া হয়। স্থানীয় হাট বাজারের নিরাপত্তায় রাজস্ব খাত থেকে প্রয়োজনীয় অর্থ ব্যায় করে এই উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। হাট-বাজার গুলোকে নিরাপদ করার জন্য প্রথম অবস্থায় পূর্বধলা উপজেলার অতিব গুরুত্বপূর্ণ ৯টি হাট-বাজারগুলোকে সিসি ক্যামেরার আওতায় নিয়ে আসার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। হাট-বাজারগুলো হচ্ছে পূর্বধলা সদর বাজার, পূর্বধলা ষ্টেশন বাজার, শ্যামগঞ্জ বাজার, হিরণপুর বাজার, জারিয়া বাজার, হোগলা বাজার, কাপাসিয়া বাজার, ধলা যাত্রাবাড়ী বাজার ও জামধলা বাজার। তিনি বলেন, হাট-বাজারগুলোতে যতবেশী সম্ভব সুপরিকল্পিত ও সঠিকভাবে সিসি ক্যামেরা বসানো হবে, ততবেশী হাট-বাজার নিরাপদ হবে। আগামীকাল থেকে হাট-বাজারগুলোতে সি সি ক্যামেরা বসানোর কাজ শুরু হবে এবং আগামী ১৫ দিনের মধ্যে তা বসানোর কাজ শেষ হবে। বাজার কমিটির সর্ব সম্মতিতে একজনের ঘরে মনিটর বসিয়ে তা মনিটর করা হবে। তিনি সামর্থবান ব্যাক্তিদেরকে নিজ নিজ উদ্যোগে প্রতিটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে সি সি ক্যামেরা লাগানোর জন্য আহবান জানান।
তিনি আরো বলেন, পর্যায়ক্রমে প্রতিটি হাট-বাজার এলাকাকে সব সময়ের জন্য প্রযুক্তির নজরদারীর আওতায় নিয়ে আসা হবে। এতে একদিকে বাজারের  ব্যবসায়ী ও সাধারণ মানুষ স্বস্থি ও নিরাপদে থাকবে অপরদিকে অপরাধীরা সর্বদা আতঙ্কে ভূগবে। তিনি নেত্রকোনা জেলার পূর্বধলা উপজেলাকে নিরাপদ মডেল উপজেলা হিসেবে গড়ে তুলতে সকল রাজনৈতিক দল, জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিকসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ এবং সর্বস্তরের জনগনের সর্বাত্মক সহযোগিতা কামনা করেন।