প্রধানমন্ত্রীর বরাবর নেত্রকোনার দলিল লিখকদের নতুন ভবনের দাবীতে আবেদন

প্রধানমন্ত্রীর বরাবর নেত্রকোনার দলিল লিখকদের নতুন ভবনের দাবীতে আবেদন

নেত্রকোনা প্রতিনিধি : নেত্রকোনা জেলা রেজিস্ট্রার এর কার্যালয়, সদর সাব রেজিস্ট্রার এর কার্যালয় ও সদর মহাফেজ খানা স্থায়ীভাবে অনুমোদন ও নতুন রেকর্ড রুমের ভবন নির্মাণ এবং দলিল লিখকগণের কার্যক্রম  পরিচালনার জন্য । শেড সরকারি খরচে নির্মাণের নিমিত্তে অনুমোদন প্রদান করার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বরাবর আবেদন করেন।দলিল লিখকগনের পক্ষে সৈয়দ আব্দুর রাজ্জাক বাচ্ছু যুগ্ম মহাসচিব কেন্দ্রীয় দলিল লিখক সমিতি । আবেদনে জানা যায় ,নেত্রকোনা জেলা রেজিস্ট্রার এর কার্যালয় ও সদর সাব-রেজিস্ট্রার এর কার্যালয় এবং সদর মহাফেজ খানা, পুরাতন পরিত্যক্ত জজ কোর্ট ভবনে স্থানান্তর করনের জন্য সরকারের আইন,বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের আইন ও বিচার বিভাগের স্মারক নং- ১০.০০.০০০০.১৩০.১৮.০০৬.১৯-৯৫ গত ১৮/০৩/২০১৯ইং তারিখ , জেলা বিজ্ঞ জজ নেত্রকোণা মহোদয়ের স্মারক নং- ৩৯৩ জে.সি.এন. তারিখ- ২৯/০৮/২০১৯ইং তারিখে আইন মোতাবেক অনুমোদন দেওয়া হয়। নেত্রকোণা সদর সাব-রেজিস্ট্রি অফিস উক্ত ভবনে গত ০৬/১০/২০১৯ইং তারিখ হইতে রেজিস্ট্রি সংক্রান্ত সকল কার্যক্রম শুরু হইয়াছে। বর্তমানে দলিল লেখকগণের বসার কোন শেড না থাকায় বারান্দাতে বসিয়া কার্যক্রম পরিচালনা করিয়া আসিতেছেন। যাহা গত ০৪/১১/২০১৯ইং তারিখে রেজিস্ট্রেশন অধিদপ্তরের আই.আরও. মহোদয় ও দুই জন জেলা রেজিস্ট্রার মহোদয় স্বচক্ষে দেখিয়া গিয়াছেন। বর্তমানে জেলা রেজিষ্ট্রি অফিস পুরাতন জজ কোর্ট ভবনে স্থানান্তরীত হইয়াছে উক্ত অফিসের রেকর্ড পত্র সংগ্রহ করিয়া রাখা এবং তল্লাশ কারকগনের বসার সুবন্ধবস্থ না থাকার কারনে বর্তমানে দলিল লিখকগণ ও তল্লাশ কারকগণের কার্যক্রম পরিচালনা করা নানা সমস্যা সৃষ্ট্রি হইয়াছে বিধায় জরুরী ভাবে উক্ত ভবনের উত্তর এবং পশ্চিম পাশের্^ পতিত জায়গায় সরকারী খরচে শেড নির্মান করিয়া দেওয়ার জন্য দলিল লিখকগণ জোর আবেদন করিয়াছেন এবং পাশাপাশি উত্তর পাশের্^ পতিত জায়গায় নতুন রেকর্ড রুম নির্মাণের জন্যও আবেদন করেন। প্রকাশ থাকে যে, নেত্রকোণায় উক্ত ভবন গুলো নির্মাণের জন্য ৬,০০,০০,০০০/-(ছয় কোটি) টাকা বরাদ্দ ছিল। কিন্তু পছন্দমত ভ‚মি না পাওয়ার কারনে নতুন ভাবে ভবন নির্মাণ করা সম্ভব হয় নাই। তাই উক্ত ভবনের কিছু সংস্কার কাজ এবং নতুন রেকর্ড রুম ও বসার শেড সরকারী অর্থে নির্মাণ করিলে । এতে সরকারের প্রায় ৫,০০,০০,০০০/-(পাঁচ কোটি) টাকা সাশ্রয় হইবে। উক্ত ভবন পরিত্যক্ত অবস্থায় বিদ্যমান ছিল এবং অস্থায়ী ভাবে উক্ত অফিস গুলোর বর্তমানে কার্যক্রম পরিচালনার জন্য অনুমতি প্রদান করিয়াছেন তাহা স্থায়ীভাবে অনুমতি প্রদানসহ নতুন রেকর্ড ভবন নির্মাণ ও দলিল লেখকগণের কার্যক্রম পরিচালনার জন্য বসার শেড সরকারী খরচে নির্মাণের জন্য আবেদন করা হয় । অস্থায়ী ভাবে চলছে নেত্রকোণা জেলা রেজিস্ট্রার এর কার্যালয়, সদর সাব-রেজিস্ট্রার এর কার্যালয় ও সদর মহাফেজ খানা । তাহা স্থায়ীভাবে অনুমোদন দেওয়ার জন্য  দলিল লিখকগণ আবেদন করেন।