আর কদিন ঘরবন্দী! শুটিংয়ে নেমেছেন কিং খানও

আর কদিন ঘরবন্দী! শুটিংয়ে নেমেছেন কিং খানও

স্টাফ রিপোর্টার সম্রাট

 

লকডাউনে ঘরবন্দী ছিলেন তারকারা। স্বাস্থ্যবিধি মেনে শুটিংয়ের সুযোগ আসতেই ঝাঁপিয়ে পড়লেন। যেন ক্যামেরার সামনে দাঁড়াতে মুখিয়ে ছিলেন তারকারা। দীর্ঘদিন পরে কাজে ফেরার তালিকাটাও বেশ লম্বা। কে নেই সেখানে? পরীমনি, সিয়াম, মাহিয়া মাহি, দীঘি। নবীন কিংবা জ্যেষ্ঠ, সবার চোখ এখন শুটিংয়ের দিকে। তবে গত কয়েক দিনে ঢালিউডের ডাকসাইটে তারকাদের শুটিংয়ে নামার খবর ছিল ‘টক অব দ্য টাউন’।

এই ধরুন, ঢালিউডের কিং খানকে দেখা গেল বাদামি রঙের চুলে। আকাশি টি–শার্ট আর নীল জিনস পরে নবাবের মতোই ক্যামেরার সামনে এলেন বাইকে চড়ে। দীর্ঘ ৫ মাস পর গত ১০ সেপ্টেম্বর ক্যামেরার সামনে দাঁড়ালেন এই নায়ক। সকাল সাড়ে ৭টায় উপস্থিত শুটিং সেটে। 

পরিচালক অনন্য মামুন বলেন, ‘শুটিংয়ের আগে শাকিব ভাইয়ের বাসায় ১৫ দিনের বেশি মহড়া করেছি। ছবির পাণ্ডুলিপি পড়েছি। তাই সেটে এসে আমাদের কাছে নতুন কোনো কিছু মনে হয়নি। শুধু করোনার কারণে কাজ কিছুটা ধীরগতিতে হয়েছে। সবাইকে সচেতন থাকতে হয়েছে।’
অনেকদিন ধরেই করোনা নিয়ে ভয়ের মধ্য আছেন অভিনেতা ফেরদৌস। তবে আর নয়। চলতি মাস থেকেই শুরু হবে ‘গাঙচিল’ ছবির বাকি ১৫ দিনের শুটিং। তার সঙ্গে অংশ নেবেন নায়িকা পূর্ণিমাও।

ফেরদৌস বলেন, ‘আর কত দিন এভাবে বসে থাকব। স্বাস্থ্যবিধি মেনেই কাজ করব। নির্মাতার সঙ্গে কথা হয়েছে, আমাদের টিম একদম ছোট থাকবে। মেকআপ রুমে একজনের বেশি থাকবেন না। সবাইকে করোনা টেস্ট করিয়ে কাজে নেওয়ার কথা বলেছি। এখন থেকে নিরাপত্তা নিয়েই নিয়মিত কাজ করতে চাই।’


সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের উপন্যাস ‘গাঙচিল’ অবলম্বনে ছবিটি নির্মাণ করছেন নঈম ইমতিয়াজ নিয়ামুল।

 

‘ক্যামেরার সামনে দাঁড়িয়ে আমার মনে হচ্ছিল ছুটে গিয়ে ক্যামেরাকে জড়িয়ে ধরি। ’প্রথম দিনের শুটিংয়ের অনুভূতি শুনতে চাইলে অ্যাডভেঞ্চার অব সুন্দরবন ছবির নায়ক সিয়াম আহমেদ এভাবেই উচ্ছ্বাস প্রকাশ করলেন। এই অভিনেতা বলেন, ‘অভিনয়টা আমার ভালোবাসার জায়গা। ক্যামেরার সামনে দাঁড়িয়ে মনে হলো অনেকদিন পর প্রাণ ফিরে পেলাম। শুটিংয়ের সবাইকে দেখে মনে হচ্ছিল জড়িয়ে ধরি। করোনার ভয়ে পারিনি।’

দীর্ঘদিন পরে প্রতিষ্ঠিত তারকারাও নামছেন শুটিংয়ের মাঠে। ঢালিউডের জন্য এ বড় সুখের খবর, যদিও সিনেমা হল খোলার কোনো সিদ্ধান্ত এখনো চূড়ান্ত হয়নি।