শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়কে একটি আন্তর্জাতিক মানের বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে গড়ে তোলা হবে -----মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী

 শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়কে একটি আন্তর্জাতিক মানের বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে গড়ে তোলা হবে -----মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী

এ.কে.এম. আব্দুল্লাহ , নেত্রকোনা  :মৎস্য ও প্রাণি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী মুক্তিযোদ্ধা আশরাফ আলী খান খসরু বলেছেন, শিক্ষা জাতির মেরুদন্ড। একবিংশ শতাব্দী চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় ছাত্র সমাজকে আধুনিক, বিজ্ঞান মনস্ক ও সুশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে আলোকিত মানুষ হিসেবে নিজেদেরকে গড়ে তুলতে হবে। তিনি বলেন, মাদক, সন্ত্রাস ও অনৈতিক কাজের বিরুদ্ধে ছাত্র সমাজকেই অগ্রণী ভুমিকা পালন করতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয় কিংবা যে কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যাতে কোন ভাবেই মাদক ঢুকতে না পারে তার দিকেও ছাত্র সমাজকেই নজর রাখতে হবে। কারন মাদক ও সন্ত্রাস শিক্ষার ব্যঘাত ঘটনায়। ছাত্র সমাজকে বিপথে পরিচালিত করে। তিনি গতকাল শনিবার নেত্রকোনায় শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার পর প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের নিয়ে অনুষ্ঠিত ওরিয়েন্টেশন সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।
 মন্ত্রী আরো বলেন, আজ নেত্রকোনার ইতিহাসে একটি ঐতিহাসিক দিন।  প্রধানমন্ত্রীর ঐকান্তিক ইচ্ছা ও আগ্রহে প্রধানমন্ত্রীর নামে দেশের একমাত্র পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। তিনি নেত্রকোনাবাসীকে একটি মেডিকেল কলেজও  উপহার দিয়েছেন এবং সেখানে ক্লাশও শুরু হয়েছে। তিনি পাঠদানের ক্ষেত্রে এ দুটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের গুণগত মান বজায় রাখতে সকলের প্রতি উদাত্ত আহবান জানান। তিনি সভায় উপস্থিত শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত সিন্ডিকেট সদস্যদের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয়কে একটি আন্তর্জাতিক মানের বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে প্রতিষ্ঠার জন্য ৫শত একর জমি অধিগ্রহন করা হচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের দৃষ্টিনন্দন অবকাঠামো গড়ে তুলার জন্য জন্য একনেকের সভায় ইতিমধ্যে ২ হাজার ৬০০  কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন ছাত্রছাত্রীদেরকে স্বাগত জানিয়ে দ্রুততম সময়ের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠায় সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন।
    বিশ্ববিদ্যালয়ের  ভিসি প্রফেসর ড. রফিক উল্লাহ খানের সভাপতিত্বে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্টার কাজী নাসির উদ্দিনের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত ওরিয়েন্টেশন সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের সচিব সাজ্জাদুল হাসান, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের সদস্য ড. ইউসুফ আলী মোল্লা, সিন্ডিকেট সদস্য কাজী জাহিদুল হাসান, সিন্ডিকেট সদস্য সুব্রত আচার্য, সিন্ডিকেট সদস্য মাহবুব হোসেন খান, শিক্ষাবিদ যতীন সরকার, জেলা প্রশাসক মঈনউল ইসলাম, পুলিশ সুপার জয়দেব চৌধুরী, নেত্রকোনা মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল বাতেন, জেলা প্রেসক্লাব সম্পাদক শ্যামলেন্দু পাল এবং জেলা রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির সম্পাদক গাজী মোজাম্মেল হোসেন টুকু।
     এর আগে প্রতিমন্ত্রী ও প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব প্রথম ব্যাচে ভর্তির সুযোগ পাওয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে বরণ করেন। অনুষ্ঠান শেষে জেলা ছাত্রলীগের পক্ষ থেকেও শিক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে বরণ করা হয়।