মদনে স্বামীকে এসিড নিক্ষেপ, স্ত্রী কারাগারে 

মদনে স্বামীকে এসিড নিক্ষেপ, স্ত্রী কারাগারে 

মদন    প্রতিনিধি ঃ নেত্রকোনার মদনে স্ত্রীর এসিড নিক্ষেপে মুখমন্ডলসহ সারা শরীর ঝলসে গেল মদন উপজেলার সোনালী ব্যাংক শাখার ক্যাশিয়ার স্বামী মাহমুদ হাসান। বুধবার রাতে পৌরসভার বাড়ি ভাদেরা রোডে ভাড়া বাসায় এ ঘটনা ঘটে। বৃহস্পতিবার অভিযুক্ত স্ত্রী নাছিমা আক্তারকে নেত্রকোনা কোর্ট হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। 

জানা যায়,  ব্যাংক ক্যাশিয়ার মাহমুদ প্রথম স্ত্রী নাছিমা আক্তারের সাথে দীর্ঘদিন দাম্পত্য জীবন অতিবাহিত করলেও কোন সন্তান না হওয়ায় তিনি গত ৭ দিন হল  দ্বিতীয় বিয়ে করেন। কিন্তু দ্বিতীয় স্ত্রীকে মদনে নিয়ে আসেননি।  এ নিয়ে বুধবার রাতে স্বামীর সাথে প্রথম স্ত্রী নাছিমা আক্তারের কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ের প্রথম স্ত্রী নাছিমা আক্তার পূর্বপরিকল্পিত ভাবে তাকে এসিড নিক্ষেপ করে। এতে তার মুখমন্ডলসহ শরীরের বিভিন্ন অংশ ঝলসে যায়। গুরুতর অবস্থায় পুলিশ তাকে উদ্ধার করে মদন হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ঢাকা বার্ণ ইউনিটে প্রেরণ করা হয়।  পুলিশ অভিযুক্ত নাছিমাকে আটক করে বৃহস্পতিবার নেত্রকোনা কোর্ট হাজতে প্রেরণ করেছে। এ সংবাদ লিখা পর্যন্ত থানায় কোন মামলা হয়নি। 


ভাড়া বাসার মালিক আক্কাস উদ্দিন মাষ্টার জানান, ভাড়াটিয়ার ডাক চিৎকারে ঘটনাস্থলে পৌঁছে দেখি তার মুখমন্ডলসহ সারা শরীর ঝলসে গেছে। তাৎক্ষনিক থানায় খবর দিলে পুলিশ এসে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায় এবং তার স্ত্রী নাছিমাকে আটক করে। 

কর্তব্যরত চিকিৎসক স্বাস্থ্য ও প:প: কর্মকর্তা ফখরুল হাসান চৌধুরী  জানান, গরম পানি অথবা ক্যামিক্যাল পদার্থ ছুড়ে মারায় ব্যাংক ক্যাশিয়ার মাহমুদ হাসানের মুখমন্ডলসহ সারা শরীর ঝলসে গেছে। তার অবস্থা আশঙ্কা জনক থাকায় তাকে ময়মনসিংহ হাসপাতালে প্রেরণ করলে সেখানকার চিকিৎসক ওই রাতেই ঢাকা বার্ণ ইউনিটে প্রেরণ করেছে। 
 
ওসি মোঃ রমিজুল হক জানান, উক্ত ঘটনার আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে।  অভিযুক্ত স্ত্রী নাছিমাকে আটক করে বৃহস্পতিবার নেত্রকোনা জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। আলামতের রির্পোট ও অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।