মোহনগঞ্জে গৃহবধুকে গলাটিপে হত্যা স্বামী, শ্বশুড়, শ্বাশুড়ী ও দেবর আটক

 মোহনগঞ্জে গৃহবধুকে গলাটিপে হত্যা স্বামী, শ্বশুড়, শ্বাশুড়ী ও দেবর আটক

এ কে এম আব্দুল্লাহ্, নেত্রকোনা ঃ খুকু মণি (২০) নামক এক গৃহবধুকে গলা টিপে হত্যার অভিযোগে তার স্বামী, শ্বশুর, শ্বাশুড়ি ও দেবরকে আটক করেছে মোহনগঞ্জ থানা পুলিশ।
      অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (বারহাট্টা সার্কেল) মোঃ সাইদুর রহমান রুবেল মামলার বরাত দিয়ে তিনি জানান, নেত্রকোনা জেলার মোহনগঞ্জ উপজেলার তেতুলিয়া ইউনিয়নের তেতুলিয়া গ্রামের বাঘাপাড়ার মোঃ রব্বানীর পুত্র মোতাকাব্বিরের (২৪) সাথে প্রায় তিন বছর পূর্বে তেতুলিয়া গ্রামের তরিকুল ইসলামের মেয়ে খুকু মণির (২০) বিয়ে হয়। বিয়ের পর সংসারের অভাব অনটন নিয়ে তাদের মধ্যে প্রায়শই ঝগড়া ঝাটি হতো। সংসারের অভাব অনটন দূর এবং আর্থিক স্বচ্ছলতা ফিরিয়ে আনতে তারা দুজনই ঢাকার গাজীপুরে একটি পোষাক কারখানায় চাকুরী করতে শুরু করে। করোনার সময় তারা দুজনই গ্রামের বাড়ীতে চলে আসে। অর্জিত টাকা পয়সা শেষ হয়ে যাওয়ায় সংসারে পূনরায় অভাব অনটন শুরু হয়। এদিকে ঈদের পর গার্মেন্টস ফ্যাক্টরী খুলে যাওয়ায় স্বামী মোতাকাব্বির স্ত্রী খুকুমনিকে পূনরায় ঢাকায় গিয়ে গার্মেন্টেসে কাজ করার জন্য বলে। খুকুমনি গার্মেন্টেসে গিয়ে কাজ করতে অনীহা প্রকাশ করে। স্বামী এ ব্যাপারে স্ত্রীর উপর অব্যাহত চাপ সৃষ্টি করায় এ নিয়ে তাদের মধ্যে প্রায়শই ঝগড়া হয়ে আসছিল। এরই এক পর্যায়ে বুধবার রাতের কোন এক সময় উল্লেখিত আসামীরা খুকুমণিকে গলা টিপে মেরে ফেলে। ভোরে মেয়ের মৃত্যুর খবর পেয়ে খুকুমনির পিতা তাৎক্ষনিক বিষয়টি মোহনগঞ্জ থানা পুলিশকে অবহিত করে। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে মৃতের লাশ উদ্ধার এবং খুকু মণির স্বামী সন্দিগ্ধ আসামী মোঃ মোতাকাব্বির, শ্বশুর মোঃ রব্বানী, শ্বাশুরী ফজিলতুন্নেছা ও দেবর মোনতাচ্ছিরকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে। পরে লাশ ময়না তদন্তের জন্য নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়। 
      এ ব্যাপারে খুকুমনির পিতা তরিকুল ইসলাম বাদী হয়ে মোঃ মোতাকাব্বির, শ্বশুর মোঃ রব্বানী, শ্বাশুরী ফজিলতুন্নেছা ও দেবর মোনতাচ্ছিরকে আসামী করে বৃহস্পতিবার মোহনগঞ্জ থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। তিনি আরো জানান, মামলার প্রেক্ষিতে আটককৃতদেরকে গ্রেফতার দেখিয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে নেত্রকোনায় আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।