দুর্গাপুরে ডাক্তারকে প্রাননাশের হুমকি দেয়া যুবকদের কারাদণ্ড

দুর্গাপুরে ডাক্তারকে প্রাননাশের হুমকি দেয়া যুবকদের কারাদণ্ড

দুর্গাপুর(নেত্রকোনা)প্রতিনিধি:নেত্রকোনার দুর্গাপুরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসারকে প্রকাশ্যে প্রাণনাশের হুমকিদাতা তিন নেশাগ্রস্থ্য যুবককে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। রোববার বিকেলে সর্বশেষ অভিযুক্ত মেহেদী হাসান জয় (২০) কে ৪ মাসের সাজা দেয়ার মাধ্যমে অভিযুক্ত ৩ জনকেই সাজা দেন ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী হাকিম ফারজানা খানম।

    উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এর পেছনে পরিত্যাক্ত ভবনের ভেতরে একদল বখাটে যুবক প্রায়সময়ই নেশা করে আসছিল। এর প্রতিবাদ করতে গেলে গত শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে ওই সরকারি হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডা. এ এস এম তানজিরুল ইসলাম রায়হানকে প্রাণনাশের হুমকী দিয়ে যায় নেশাগ্রস্থ্য ৩ যুবক। এ বিষয়টি গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশ হওয়ার পর সোস্যাল মিডিয়ায় নানা মিশ্রপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। খবর পেয়ে ঘটনার দিন দুপুরে অভিযুক্ত সানি (১৯) কে আটক করে পুলিশ। পরে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে ছয় মাসের সাজা দেন বিজ্ঞ নির্বাহী হাকিম। ঘটনার তিনদিন পরে আরেক অভিযুক্ত হুমকীদাতা আকাশ (১৮) কে চার মাসের দণ্ড দেয়া হয়। সর্বশেষ মেহেদী হাসান জয় কে ৪ মাসের সাজা দেন ভ্রাম্যমান আদালত।

    ডা. রায়হান জানান, আমি ওদেরকে বিভিন্ন সময়ে নিষেধ করেছি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে না আসার জন্য, আর এতেই ক্ষিপ্ত হয়ে আমাকে প্রাণনাশেরে হুমকী দিয়ে চলে যায় তিন যুবক। এ বিষয়টি নিয়ে গণমাধ্যম সোচ্চার ভূমিকা রেখেছে। উপজেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, স্বাস্থ্য বিভাগ ও উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের আন্তরিকতার ফলে ওই বখাটে নেশাগ্রস্থ যুবকদের আইনের আওতায় আনা সম্ভব হয়েছে। আমি এ ন্যায় বিচারের সাথে সম্পৃক্তদের সকলকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

    এ ব্যাপারে ওসি মোঃ মিজানুর রহমান জানান, ঘটনাটি শুনেই ওই এলাকা পরিদর্শন করিয়েছি। খুব দ্রুততার সহিত অভিযুক্তদের আটক করতে সক্ষমও হয়েছি। অভিযুক্ত তিন যুবককে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। মাদক সেবনকারীদের বিরুদ্ধে পুলিশ জিরো টলারেন্স নীতিতে কাজ করে যাচ্ছে। অপরাধীদের কোনো ভাবেই ছাড় দেয়া হবেনা।