উত্যক্ত করনে বাঁধা দেয়ায় পুকুরে বিষ ঢেলে পোনা নিধন

উত্যক্ত করনে বাঁধা দেয়ায় পুকুরে বিষ ঢেলে পোনা নিধন

তোবারক হোসেন খোকন, দুর্গাপুর : নেত্রকোনার দুর্গাপুরে দুই সহোদর বোনকে উত্যক্তে বাঁধা দেয়ার পুকুরে বিষয় ঢেলে পোনা মাছ নিধনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত বুধবার রাতে এ ঘটনা ঘটেছে। ভূক্তভোগী শাহাদাৎ হোসেন বাদী হয়ে দুর্গাপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দাখিল করলে এখন পর্যন্ত অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হয়নি।

    এ নিয়ে ভূক্তভোগী শাহাদাৎ হোসেন শনিবার দুপুরে লিখিত অভিযোগে সাংবাদিকদের জানান, উপজেলার গাঁওকান্দিয়া ইউনিয়নের কান্দাপাড়া গ্রামের নজরুল ইসলামের দুই কন্যা কলেজ পড়–য়া তামান্না আক্তার (১৯) ও নাজমুন্নাহার (১৩) কে বিভিন্ন সময়ে উত্যক্ত করে আসছিলো ওই গ্রামের গ্রামের আমের আলীর পুত্র আবু সাঈদ (২৫)। এ বিষয়টি তার পরিবারে জানানো হলে ওই যুবককে প্রাথমিক ভাবে নিষেধ করা হয়। এতে আরো ক্ষিপ্ত হয়ে নানা ভাবে উত্যক্ত শুরু করলে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের জানালে গ্রাম্য শালিসে আর বিরক্ত করবেনা বলে সাশিয়ে দেয়া হয়। পরবর্তিতে ওই শালিসের জের ধরেই ওই পরিবারের ক্ষতি সাধনের লক্ষে গত বুধবার রাতে শাহাদাৎ হোসেন এর পুকুরে থাকা কার্প জাতীয় মাছের পোনা গুলোকে বিষ ঢেলে দিলে বিভিন্ন প্রজাতির মাছের নয় লক্ষ পোনা মরে পানিতে ভেসে উঠে। এতে প্রায় ছয় লক্ষ টাকার ক্ষতি সাধিত করা হয়েছে। এ খবরে বৃহস্পতিবার মৎস্য অফিসের লোকজন পানি ও মাছ পরীক্ষা করে বিষ প্রয়োগের মাধ্যমে পোনা গুলো মারা গেছে বলে নিশ্চিত করেন মৎস্য কর্মকর্তা। এ বিষয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানকে ও মেম্বারগন কে অবগত করেও কোন ফল পাওয়া যায়নি বলে জানান শাহাদাৎ হোসেন।

    এ বিষয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মতিন জানান, আমি বিষ ঢেলে মাছের পোনা মেরে ফেলার ঘটনাটি শুনেছি। ওই সকল লোকজন আসলেই উশৃঙ্খল প্রকৃতির। ওদের আইনের আওতায় আনা উচিত।

    ওসি মোঃ মিজানুর রহমান বলেন, এ বিষয়ে অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত চলমান রয়েছে। ঘটনার সাথে জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে।