নেত্রকোনায় কেরাম বোর্ড খেলা নিয়ে সংঘর্ষ ঃ আহত-১০ ঃ গ্রেফতার-২

নেত্রকোনায় কেরাম বোর্ড খেলা নিয়ে সংঘর্ষ ঃ আহত-১০ ঃ গ্রেফতার-২

এ কে এম আব্দুল্লাহ, নেত্রকোনা ঃ নেত্রকোনা সদর উপজেলার মৌগাতী ইউনিয়নের কাঞ্চনপুর গ্রামে সোমবার সন্ধ্যায় কেরাম বোর্ড খেলাকে কেন্দ্র করে দু’দল গ্রামবাসীর সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ১০জন আহত হয়েছে।
     স্থানীয় এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, কাঞ্চনপুর গ্রামে সোমবার সন্ধ্যায় সাদ্দাম হোসেন, মাসুমসহ চার যুবক মিলে কেরাম বোর্ড খেলছিল। এ সময় একই গ্রামের মোহন মিয়া কেরাম বোর্ড খেলতে বাঁধা দেয়। এ নিয়ে তাদের মধ্যে উত্যপ্ত বাক-বিতন্ডা শুরু হয়। এক পর্যায়ে দুই পক্ষই দেশীয় লাঠিসোটা নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষে আমিরুল ইসলাম, সাদ্দাম হোসেন, মাসুম, হৃদয় মিয়া ও মোহন মিয়াসহ উভয় পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়। এলাকাবাসী আহতদেরকে নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আমিরুল ইসলামের অবস্থার অবনতি দেখে রাতেই তাকে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন। আহত হৃদয় মিয়া, মোহন মিয়া, মাসুম ও সাদ্দাম হোসেনকে নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকীদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা প্রদানের পর ছেড়ে দেয়া হয়েছে।
          মৌগাতী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান খান জানান, কেরাম খেলা নিয়ে কাঞ্চনপুর গ্রামে দুই পক্ষের মধ্যে মারামারি হয়েছে। এতে দুই পক্ষেরই বেশ কয়েকজন আহত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছে।  
          নেত্রকোনা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ তাজুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, কাঞ্চনপুর গ্রামে কেরাম খেলা নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনায় সুরুজ আলী বাদী হয়ে হৃদয় মিয়া, মোহন মিয়াসহ আটজনের নাম উল্লেখ করে মঙ্গলবার নেত্রকোনা মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলার প্রেক্ষিতে পুলিশ মঙ্গলবার নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতাল থেকে হৃদয় মিয়া ও মোহন মিয়াকে গ্রেফতার করেছে।