নেত্রকোনায় ৫ম শ্রেণির স্কুল ছাত্রীকে অপহরণের পর ধর্ষণের অভিযোগ

নেত্রকোনায় ৫ম শ্রেণির স্কুল ছাত্রীকে অপহরণের পর ধর্ষণের অভিযোগ

এ কে এম আব্দুল্লাহ, নেত্রকোনা ঃ দুই বখাটে যুবকের বিরুদ্ধে ওয়াজ মাহফিল থেকে পঞ্চম শ্রেণিতে পড়–য়া এক স্কুল ছাত্রীকে (১১) সুকৌশলে ডেকে নিয়ে অপহরণ পূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ ওঠেছে। ধর্ষণের শিকার মেয়েটিকে বর্তমানে নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত মঙ্গলবার রাতে নেত্রকোনা সদর উপজেলার ল²ীগঞ্জ ইউনিয়নের বাজনীপাড়া গ্রামে।
    এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বাজনীপাড়া হাফিজিয়া মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে গত মঙ্গলবার রাতে ওয়াজ মাহফিল অনুষ্ঠিত হচ্ছিল। উক্ত ওয়াজ মাহফিল শুনতে ওই স্কুল ছাত্রী তার নানীর সঙ্গে সেখানে যায়। রাত আনুমানিক ১১টার দিকে বাজনীপাড়া গ্রামের পিয়েল মিয়া (২৫) ও তরিকুল ইসলাম (২৬) নামে দুই বখাটে যুবক সুকৌশলে মেয়েটিকে সেখান থেকে ডেকে নিয়ে হাত-পা ও মুখ কাপড় দিয়ে বেঁধে অপহরণ করে। পরে তাকে পিয়েলের বাড়ির একটি ঘরে নিয়ে ধর্ষণ করেন। মেয়েটির ভাষ্য, পিয়েল তাকে মঙ্গলবার ও বুধবার বিভিন্ন সময় তাকে ধর্ষণ করেছে। অপহরণ ও ধর্ষণের কথা কাউকে বললে তাকে প্রাণে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে হাত-পা ও মুখের বাঁধন খুলে বুধবার দুইটার দিকে পিয়েল তাকে ছেড়ে দেয়। মেয়েটি বাড়িতে এসে তার পরিবারকে ঘটনা খুলে বললে স্বজনরা তাকে রাত সাড়ে তিনটার দিকে নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে। বর্তমানে ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
    নেত্রকোনা সিভিল সার্জন ডাঃ মোঃ তাজুল ইসলাম খান বলেন, ‘মেয়েটিকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। বর্তমানে সে শঙ্কামুক্ত।’
      এ ব্যাপারে নেত্রকোনা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ তাজুল ইসলামের সাথে বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টার দিকে যোগাযোগ করলে তিনি ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ‘মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করতে এসেছে। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত পিয়েল পলাতক রয়েছেন। তবে তার সহযোগী তরিকুল ইসলামকে পুলিশ গত বৃহস্পতিবার সকাল ছয়টার দিকে আটক করেছে।