কেন্দুয়ায় খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির ২১ বস্তা চাল জব্দ

কেন্দুয়ায় খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির ২১ বস্তা চাল জব্দ

মহসীন কেন্দুয়া (নেত্রকোনা) প্রতিনিধি ঃ নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলায় খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির আওতায় কার্ডধারী অসহায় ও দুস্থ নাগরিকদের জন্য বরাদ্দকৃত ২১ বস্তা সরকারি চাল বেআইনী ভাবে রাখার অভিযোগে মঙ্গলবার রাত নয়টার দিকে জব্দ করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আল-ইমরান রুহুল ইসলাম বলাইশিমুল ইউনিয়নের সরাপাড়া বাজারে খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির ডিলারের নির্ধারিত দোকানের পাশে অন্য একটি দোকান থেকে এ চাল জব্দ করেন। এ সময় উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক জয়নুল আবেদীন, ওসি মোহাম্মদ রাশেদুজ্জামান উপস্থিত ছিলেন। কেন্দুয়া উপজেলা যুবমহিলালীগের সহ-সভাপতি শাহানাজ পারভীনের স্বামী খায়রুল ইসলাম কিছুদিন আগে খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির ডিলার নিযুক্ত হন। এলাকার কতিপয় লোকজন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে মোবাইল ফোনে জানান, ১০ টাকা কেজি মূল্যের খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির চাল সরাপাড়া বাজারে একটি দোকানে অসৎ উদ্দেশ্যে রাখা হয়েছে। খবর পেয়ে রাতে ছুটে যান ওই বাজারে। তিনি তার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ২১ বস্তা চাল জব্দ করার বিষয়ে একটি স্ট্যাটাস দেন। এতে উল্লেখ করা হয় জব্দকৃত ২১ বস্তা (১০৫০) কেজি সরকারি চালের ক্রেতা ও বিক্রেতা কারা তাদের চিহ্নিত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তবে খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির ডিলার খায়রুল ইসলামের ডিলারশীপ সাময়িক ভাবে স্থগিত করা হয়েছে। তদন্তের পর নির্দোশ প্রমানীত হলে আবার ডিলারশীপ কার্যক্রম শুরু করার নির্দেশ দেয়া হবে। অপরদিকে জব্দকৃত ২১ বস্তা চাল প্রকাশ্যে নিলামে বিক্রয় করে বিক্রয় লব্দ অর্থ সরকারি কোষাগারে জমা দেয়ার জন্য উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রককে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক জয়নুল আবেদীন বলেন, উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশনা মোতাবেক সুষ্ঠু তদন্ত চলছে। জব্দকৃত চাল প্রকাশ্যে নিলামে বিক্রির পর প্রাপ্ত অর্থ কোষাগারে জমা দেয়া হবে। এছাড়া তদন্তের পর ডিলারশীপ কার্যক্রম শুরু করার নির্দেশ দেবেন উপজেলা প্রশাসন। খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির ডিলার খায়রুল ইসলামের স্ত্রী উপজেলা যুবমহিলালীগের সহ-সভাপতি শাহনাজ পারভীন বলেন, আমার স্বামী যথানিয়মেই কার্ডদারীদের মাঝে চাল বিক্রি করেছেন। এতে আমার স্বামী খায়রুল ইসলামের কোন দোষ নেই। দোকানে কারা চাল রেখেছে বা কে বিক্রি করেছে এটির সুষ্ঠু তদন্তের দাবী করি।